প্রতি বিটকয়েনের (Bitcoin) মূল্য এখন ২৯৩৯ মার্কিন ডলার

প্রতি বিটকয়েনের (Bitcoin) মূল্য এখন ২৯৩৯ মার্কিন ডলার

0

বিশ্বের নানা দেশে Cyber হামলায় Blackmail money হিসেবে Bitcoin দাবি করায় গত কয়েক সপ্তাহে বিটকয়েন নামটি বার বার ভাইরাল হয়ে উঠেছে। আর এখন এতটাই ভাইরাল যে, চলতি বছরে বিটকয়েনের মূল্য সর্বোচ্চ রেকর্ডে পৌঁছেছে। বুধবার প্রতি বিটকয়েনের দাম দাঁড়ায় ২৯৩৯ মার্কিন ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় হিসাব করলে প্রায় ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা।

Coinbase নামে একটি বিটকয়েন এক্সচেঞ্জ ওয়েবসাইট তথ্য অনুযায়ী, শেষ এক মাসে প্রায় হাজার ডলারের বেশি দাম বেড়েছে প্রতি বিটকয়েনের। গত বছরে মে মাসেই প্রতি বিটকয়েনের দাম ছিল ৪৪০ ডলারের কাছাকাছি।

Payoneer MasterCard নিয়ে নিন 25 Dollar সহ + বিস্তারিত তথ্য

আর চলতি বছর একই সময়ে রেকর্ড উচ্চতায় পৌঁছেছে বিটকয়েন। ডলার, রুপির মতো এই Digital সাংকেতিক মুদ্রায় বিনিয়োগ করা যে কতটা লাভবান, তা সিনবিসি-এর একটি বিপোর্টে স্পষ্ট। সেই রিপোর্ট বলেছে, ৭ বছর আগে কেনা মাত্র ০.০০৩ ডলার মূল্যে একটি বিটকয়েনের দাম এখন ২২০০ ডলার।

বিটকয়েন বিনিয়োগকারীদের কাছে সোমবার দিনটি ছিল “Bitcoin Pizza Day” । প্রশ্ন হতে পারে এরকম একটি ডে পালনের পেছনের রহস্য কি ?

ল্যাজলো হ্যানেজ নামে এক প্রোগ্রামার ২০১০ সালে ১০ হাজার বিটকয়েন খরচ করে ২টি পিত্জা কিনেছিলেন, এখন যার মূল্য দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ১০ লক্ষ ডলার। সে সময় ওই পরিমাণ বিটকয়েনের মূল্য ছিল মাত্র ৪১ ডলার। যদিও হ্যানেজ সরাসরি বিটকয়েন দিয়ে পিতজা কেনননি। ওই দুই পিতজা পেতে তিনি অন্য এক ইউজারকে দশ হাজার বিটকয়েন ট্রান্সফার করেছিলেন। এই খবরে প্রকাশ্যে আসতেই এই দিনটি বিটকয়েন পিতজা ডে নামে ভাইরাল হয়ে ওঠে সোশ্যাল মিডিয়ায়।
বিটকয়েন নামে এই ক্রাইপ্টেকারেন্সি কোনো সরকার বা দেশ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় না। ব্যাংক বা কোনো আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমেও লেনদেন হয় না। এটি এমন একটি ডিজিটাল পেমেন্ট প্লার্টফরম, যা ওপেন সোর্স সফটওয়্যার মাধ্যমে গ্রাহক থেকে গ্রাহক লেনদেন হয়। এই প্ল্যাটফর্মটি আসলে একটি ডিসেন্ট্রালাইজড সিস্টেম, অর্থ্যাৎ বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বিভিন্ন সেল্ফ অর্গানাইজেশনের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় বিটকয়েনের লেনদেন পরিষেবা।

PAYZA ACCOUNT যেভাবে CREAT করবেন এবং ভেরিফাই করবেন সর্ম্পূণ্য একসাথে যেভাবে করবেন

একমাত্র জাপানই এই বিটকয়েন লেনদেনে উৎসাহ দেখিয়েছে। এই ক্রাইপ্টোকারেন্সির মাধ্যমে সরাসি জিনিসপত্র কেনাকাটার ভোটো দিয়েছে তারা। কীভাবে কেনা যায় এই বিটকয়েন?

সিএনবিসি জানাচ্ছে, কয়েনবেস, জিবিটিসি এবং বিকে ক্যাপিটাল ডিজিটাল অ্যাসেট ফান্ড নামে বিটকয়েন এক্সচেঞ্জগুলির মাধ্যমে কেনা যেতে পারে। তবে, বিটকয়েন লেনদেনের সুরক্ষা নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ। ২০১৪ সালে বার বার চুরি হওয়ার কারণে এমটি গক্স নামে জাপানের একটি বিটকয়েন এক্সচেজ্ঞ দেউলিয়া হয়ে যায়। তাদের দাবি ছিল, হ্যাকিং এর মাধ্যমে প্রায় ৮.৫০ লক্ষ বিটকয়েন চুরি হওয়ায় লগ্নিকারীদের টাকা ফেরত দিতে পারেনি তারা।

অাপনার মতামত জানাতে চাইলে অবশ্যই কমেন্ট করুন । কেননা অাপনাদের মতামতের উপর নির্ভর করে পরবর্তী পোষ্ট টপিকগুলো নিবার্চন করা হয়।

IT CARE WORLD এর সাথে যুক্ত হতে পারেন আপনিও অার সাথে থাকছে দারুন কিছু অফার বিস্তারিত জানতে Click করুন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY